“কে তুমি অপরিচিতা” মোঃ রায়হান কাজী

 

তুমি এসেছিলে কোনো এক বসন্ত বিকেলে।

রাস্তার মোড়ে রেললাইনের পাশে।

তাকিয়ে ছিলে আমার দিকে।

কাজল কালো আখিঁ জোড়া মেলে।

 

আমি বুঝতে পারিনি ঐ চাউনি।

বুঝতে পারিনি তাকানোর মানে কী?

তবে নিস্তব্ধতার মাঝে কী যেন শুনতে পেয়েছিলাম।

পেয়েছিলাম শুনতে তোমার পদধ্বনি নীরবে।

 

লোক সমাগমের হাঁক ডাকের কারণে,

বুঝেছিলাম তোমার ওভাবে তাকানোর মানে।

আমি হেঁটে চলে গিয়েছিলাম নিজের কাজে।

একবারও তোমার দিকে না তাকিয়ে।

 

আমি জানিনা কে তুমি অপরিচিতা?

আমি জানিনা তোমার পরিচয় কী?

জানিনা কেন এসে দাঁড়িয়ে ছিলে আমার জন্য?

জানিনা আবার দেখা হবে কিনা?

 

যেটুকু দেখেছিলাম মন কেড়ে নিয়ে ছিলে তুমি।

কোনো এক ঝরে উতালপাতাল করে গেছে হ্নদয়।

কাঁপুনি উঠেছিলো বুকের বামপাশের হ্নৎপিন্ডে।

প্রতি স্পন্দনে শিউরে উঠছিলাম অজানা সুখে।

 

নাম না-জানা অপরিচিতা বুঝতে পারিনি,

তোমাতে আমাতে দেখা হবে এভাবে।

কোনো এক হাস্যজ্জল দিনে পড়ন্ত বিকেলে ।

আবার যদি একসাথে দেখা হয় অন্য কোনো বসন্তে,

  • তোমাকে সাজিয়ে দিবো রামধনুর সাতরঙা সাঁজে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *